1. mistupoddar056@gmail.com : Bangla : Bangla
  2. admin@jatiyokhobor.com : jatiyokhobor :
  3. suhagranalive@gmail.com : Suhag Rana : Suhag Rana
শুক্রবার, ২৫ জুন ২০২১, ০৭:৩৫ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
ধন্যবাদ জানাই  গুগলকে আমাদের প্রচেষ্টাকে সম্মান করার জন্য পৃথিবীর অভ্যন্তরীণ গতিবিধি থেকে নতুন সিদ্ধান্ত নিয়েছেন বিজ্ঞানিরা করোনার ভ্যাকসিনের বিশ্বব্যাপী বিতরণ শুরু দ্রুত ভ্রমণের জন্য মহাকাশে হাই বে পথও আছে ভিটামিন ডি করোনার মৃত্যুর ঝুঁকি হ্রাস করে গবেষণায় জানা গেছে জীবনের অনেক চিহ্ন এখনও মঙ্গল গ্রহের পরিবেশে বিদ্যমান অক্সিজেনের সাহায্যে বয়সকে মাত দিতে চলেছেন বিজ্ঞানিরা এর ডানার বিস্তার ছিল বিশ ফুট ছিলো প্রাগতৈহাসিক যুগে গুরু এবং শনি একে অপরের নিকটে আসছে হত্যা চেষ্টা মামলার আসামী নিশির সাথে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সেক্রেটারি লেখকের অনৈতিক সম্পর্কের অভিযোগ রাশিয়ান বিজ্ঞানী কে হত্যা করা হয়েছে করোনার ভ্যাকসিনের সাথে যুক্ত ছিলেন গুদামে সরবরাহিত চিনি জেলা প্রশাসক অফিসে জানানো হবে মানসিক হয়রানি তদন্ত এবং দুই ব্যক্তির বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া ভারতীয় সেনাবাহিনীর ইউনিফর্ম পরিবর্তন করা হবে চিকিত্সার অভাবে মারা গেল লাপুংয়ের কেওয়াত টালির দরিদ্র শ্রমিক

চিকিত্সার অভাবে মারা গেল লাপুংয়ের কেওয়াত টালির দরিদ্র শ্রমিক

Reporter Name
  • পোষ্ট করেছে : Tuesday, 15 December, 2020
  • ৩৫৩ জন দেখেছেন
চিকিত্সার অভাবে মারা গেল লাপুংয়ের কেওয়াত টালির দরিদ্র শ্রমিক
  • হঠাত্ করেই হাতিটিকে সূর‌্যের সংস্পর্শে এলে
  • এই অঞ্চলে বন্য হাতির এক ভয়াবহ উপদ্রব 
  • রাত থেকে সকাল অবধি কৃষিক্ষেত্র ধ্বংস করে দেওয়া

জাতীয় খবর,

লাপুঙ্গ: চিকিত্সার অভাবে তত্কালীন গরিব শ্রমিক অনিল হোরো আগে অজ্ঞান

হয়েছিলেন সেখানে না থাকার কারণে তিনি মারা যান |এই ঘটনার পরে হাসপাতালে ব্যাপক

কোন্দল হয়|বিধায়ক প্রতিনিধিরা পরে হাসপাতাল ব্যবস্থাপনায় ব্যবস্থা নেওয়ার দাবি জানান|

লাপুং থানা এলাকার চলাঙ্গি গ্রামের কেয়াট্টোলিতে বন্য হাতির আঘাতের পরে ৩৫ বছর বয়সী

অনিল হোরো গ্রামবাসী অজ্ঞান হয়ে পড়ে এবং হাসপাতালে নেওয়ার পরে চিকিত্সার অভাবে

মারা যায়|হাসপাতালে চিকিত্সকের অনুপস্থিতির কারণে বিধায়কদের প্রতিনিধিরা সুদামা

মহালীর নেতৃত্বে প্রচুর হৈচৈ সৃষ্টি করেছিল এবং বলেছিল যে সে যদি ডাক্তার হত তবে অনিল

হোরোর জীবন বাঁচানো যেত|সোমবার সকাল সাড়ে তিনটা থেকে সাড়ে তিনটা পর‌্যন্ত লাপং

কমিউনিটি হেলথ সেন্টারে কোনও চিকিত্সক ছিলেন না|দুর্ভাগ্যজনক বিষয়টি ছিল যে সকালে

মৃতু্যর পরে চিকিত্সার অভাবে মরদেহ ভারী গাফিলতি ও উদাসীনতার কারণে বিকেল ৪ টা

পর‌্যন্ত হাসপাতালে পড়ে ছিল|বিকেল ৪ টা ৪০ মিনিটের পরে মরদেহ ময়না তদন্তে পাঠানো যেতে

পারে| হাসপাতালে পৌঁছে বিধায়ক প্রতিনিধি সুদামা মহালী, পবন ঠাকুর, মহাবীর সাহু, মুখিয়া

প্রতাপ এবং সমাজকর্মী প্রভুদন হোরো জানিয়েছেন যে, বলেছিলেন যে চিকিত্সকের

অনুপস্থিতির কারণে লাপুংয়ের কমিউনিটি হেলথ সেন্টারের ব্যবস্থা পুরোপুরি ধসে গেছে|

অন্যদিকে, লাপুং থানার কেয়াট্টোলি, পাত্রাতোলি, কালজে ও গোপালপুরে সকাল সাড়ে ৮ টা

থেকে সন্ধ্যা ৪ টা পর‌্যন্ত বন্য হাতিরা বিভিন্ন গ্রামে বিশাল প্রাদুর্ভাব সৃষ্টি করে এবং

গোপালপুরের প্রাক্তন হেডম্যান ওমান, পাত্রাতোলির কৃষক রুবেন হোরো,মাদু হোরো, রঞ্জিত

কেওয়াত কালজে দেবন্তী হোরোর জমিতে রোপণ করা আলু এবং মটর গাছের সবজি ফসল

পুরোপুরি নষ্ট করে দিয়েছে|

চিকিত্সার অভাবে মৃত ব্যক্তি হঠাত্ করে হাতির সামনে পড়ে যায়

চিকিত্সার অভাবে মৃত ব্যক্তি হঠাত্ করে হাতির সামনে পড়ে যায়|কাওয়াত টলি গ্রামে ১৫

থেকে ১ ১৬ সকালে বন্য হাতির একটি পাল গ্রামে প্রবেশ করায় গ্রামবাসীদের মধ্যে আতঙ্ক

ছড়িয়ে পড়ে| লোকজন ডত্রক্যবদ্ধভাবে বন্য হাতিদের তাড়িয়ে দেওয়ার চেষ্টা করেছিল|এই

প্রয়াসে একটি বন্য হাতি মতিয়া শ্রমিক অনিল হোরোর বাড়ির কাছে পৌঁছেছিল|গ্রামবাসীরা

জানায়, অনিল একটি বন্য হাতির দ্বারা আঘাত পেয়েছিল এবং বন্য হাতি তাকে আঘাত করে

এবং ছুঁড়ে মারে, অনিল হোরোকে অজ্ঞান করে তোলে|অভ্যন্তরীণ চোটের কারণে তিনি বাহ্যিক

ছোটটি কিন্তু অজ্ঞান হয়ে ওঠেননি|এর পরে গ্রামবাসীরা অজ্ঞান হয়ে পড়ে থাকা অনিল

হোরোকে হাসপাতালে নিয়ে যায় যেখানে তার মৃতু্য হয়|অনিল হোরোর মৃতু্যর পরে তাঁর স্ত্রী ও

তিন সন্তান কাঁপুনিতে রয়েছেন| গ্রামবাসীরা অনিল হোড়োর মৃতু্যর পরে ক্ষতিপূরণ দেওয়ার

জন্য বিধায়ক বাঁধু তিরকি ও সরকারের কাছে দাবি জানিয়েছে|রাত ও দিনের ঘটনার পরে বন

বিভাগের কোনও কর্মকর্তা ও কর্মচারীরা বেলা ০৪ টা পর‌্যন্ত এদিকে গ্রামে পৌঁছাতে পারেনিঘ

এবং এরই মধ্যে গ্রামবাসীদের মধ্যে প্রচুর আতঙ্ক ও ক্ষোভ রয়েছে| শ্রমিক অনিল হোরোর মৃতু্যর

পরে তার স্ত্রী জিরেন হোরো বিভ্রান্ত হয়ে পড়েছেন| তার তিন ছোট বাচ্চা যথাক্রমে ১২ বছর

বয়সী সুলামি হোরো, ১০ বছর বয়সী অনুশা হোরো এবং আট বছর বয়সী রিতেশ হোরো

বাবার মৃতু্যর পরে শোকাহত| সমাজকর্মী ও কৃষক রুবেন হোরো সরকারের কাছে দাবী

করেছেন যে অনিল পরিবারের সদস্যদের অবিলম্বে ক্ষতিপূরণ দেওয়া এবং শিশুদের লেখার

লেখার ব্যবস্থা করা উচিত|

Please Share This Post in Your Social Media

More News Of This Category

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

ব্রেকিং নিউজ
Bengali English Hindi