1. mistupoddar056@gmail.com : Bangla : Bangla
  2. admin@jatiyokhobor.com : jatiyokhobor :
  3. suhagranalive@gmail.com : Suhag Rana : Suhag Rana
শুক্রবার, ২৫ জুন ২০২১, ০৮:১১ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
ধন্যবাদ জানাই  গুগলকে আমাদের প্রচেষ্টাকে সম্মান করার জন্য পৃথিবীর অভ্যন্তরীণ গতিবিধি থেকে নতুন সিদ্ধান্ত নিয়েছেন বিজ্ঞানিরা করোনার ভ্যাকসিনের বিশ্বব্যাপী বিতরণ শুরু দ্রুত ভ্রমণের জন্য মহাকাশে হাই বে পথও আছে ভিটামিন ডি করোনার মৃত্যুর ঝুঁকি হ্রাস করে গবেষণায় জানা গেছে জীবনের অনেক চিহ্ন এখনও মঙ্গল গ্রহের পরিবেশে বিদ্যমান অক্সিজেনের সাহায্যে বয়সকে মাত দিতে চলেছেন বিজ্ঞানিরা এর ডানার বিস্তার ছিল বিশ ফুট ছিলো প্রাগতৈহাসিক যুগে গুরু এবং শনি একে অপরের নিকটে আসছে হত্যা চেষ্টা মামলার আসামী নিশির সাথে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সেক্রেটারি লেখকের অনৈতিক সম্পর্কের অভিযোগ রাশিয়ান বিজ্ঞানী কে হত্যা করা হয়েছে করোনার ভ্যাকসিনের সাথে যুক্ত ছিলেন গুদামে সরবরাহিত চিনি জেলা প্রশাসক অফিসে জানানো হবে মানসিক হয়রানি তদন্ত এবং দুই ব্যক্তির বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া ভারতীয় সেনাবাহিনীর ইউনিফর্ম পরিবর্তন করা হবে চিকিত্সার অভাবে মারা গেল লাপুংয়ের কেওয়াত টালির দরিদ্র শ্রমিক

বাংলাদেশ থেকে ভারত জলপথ নৌবাণিজ্যের নযা দিগন্ত

Reporter Name
  • পোষ্ট করেছে : Thursday, 12 November, 2020
  • ১১০ জন দেখেছেন
বাংলাদেশ থেকে ভারত জলপথ নৌবাণিজ্যের নয়া দিগন্ত খুলছে আরেকটি পথ
  • আমিনুল হক

ঢাকাঃ বাংলাদেশ থেকে পণ্যবাহী জাহাজ গিযে ভিড়বে আসামের করিমগঞ্জের জাহাজঘাটে।

এদিন দিল্লী থেকে ভার্চূযালী অসমের একাধিক অনুষ্ঠানে যোগ দেবেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী।

সেই সঙ্গে বাংলাদেশ থেকে যাওযা পণ্যও গ্রহণ করবেন তিনি। অতীতে তত্কালীন পূর্ববঙ্গের

রাজবাড়িসহ বিভিন্ন স্থান থেকে জলপথে যাত্রীবাহী জাহাজ এসে ভিড়তো এই জাহাজ ঘাটে। সেই

থেকে আজও এটি জাহাজঘাট নামেই পরিচিত। রবিবার এই জাহাজ ঘাটেই ভিড়বে পণ্যবাহী

জাহাজ। এটি আসবে বাংলাদেশ থেকে। বৃহস্পতিবার অপরাহ্নে এই বিষযটিকে সামনে রেখে

‘বাংলাদেশ“ভারত কানেক্টিটিভি নেটওযার্ক (বিবিসিএন) তরফে একটি ভার্চূযালী বৈঠকের

আযোজন করে। বিবিসিএন’র সভাপতি ড. অধ্যাপক হাবিৱুর রহমানের সভাপতিত্বে এতে যোগ

দেন আসামের বরাক উপত্যকার প্রথম প্রধান জাতীয দৈনিক সামযিক প্রসঙ্গ’র সম্পাদক তৈমুর

রেজা চৌধুরী, পশ্চিমবঙ্গের বর্ধমান ইউনিভার্সিটির অধ্যাপক ড. রফিক মীর, বিবিসিএন’র

অন্যতম সদস্য মো. ইউসুফ ফয়সাল, নিখিল ভদ্র, রাহা কাজি। অনুষ্ঠান পরিচানা করেন

বিবিসিএন’র প্রতিষ্ঠাতা ও এক্সিজিকিউটিভ প্রেসিডেন্ট আমিনুল হক। বক্তারা বলেন, বাংলাদেশ

ভারত নৌপ্রোটকলের আওতায দু’দেশের মধ্যে নৌবাণিজ্যে এক নয়া দিগন্তের সূচনা করেছে।

বাংলাদেশ থেকে প্রা ৮০০ জাহাজ আসা যাওয়া করবে

বর্তমানে নৌপ্রোটোকলের আওতায ১০টি জলপথ সচল রয়েছে। এসব জলপথে নিযমিত

পণ্যপরিবাহিত হযেআসছে। প্রতিমাসে কেবল কলকাতা থেকে সিমেন্টের কাঁচামাল ফ্ল্যাইঅ্যাস

পরিবহনে বাংলাদেশের প্রায ৮০০ জাহাজ নিয়োজিত রয়েছে। পাশাপাশি বাংলাদেশের চিলমারি

থেকে আসামের ধুবড়ি, শিলঘাট ও পান্ডু থেকে জলপথটি দিনকে দিন ব্যস্ত হযে ওঠেছে। এই

জলপথটি দিযে ভারত থেকে পাথর পরিবাহিত হচ্ছে। জলপথটি খননে ভারত ৮০ এবং

বাংলাদেশ ২০ অর্থ যোগান দিচ্ছে। তেমনি বাংলাদেশের আশুগঞ্জ থেকে কুশিযারা পর্য্যন্ত দীর্ঘ

জলপথটিও খননে একই ভাবে অর্থেও যোগান দেওযা হচ্ছে বলে উল্লেখ করেন বক্তারা। তৈযমুর

জো চৌধুরী বলেন, দু’দেশের বন্ধনটা ঐতিহাসিক। উত্তরপূর্ব ভারতে জলপথে পণ্য পরিবাহিত

সাশ্রযী এবং সমযও কম লাগবে। এতে উভয দেশ অর্থনৈতিকভাবে লাভবান হবে। তৈমুর রেজা

চৌধুরী বলেন, নৌপথে পন্যপরিবহনের পাশাপাশি দু দেশের সম্পর্ক উন্নযনে এটি একটি সিড়ি

হিসেবে কাজ করবে। যার অংশিদারিত্ব থাকবে বিবিসিএন। মো. ইউসুফ ফযসাল বলেন,

বাংলাদেশের চিলমারি থেকে অসমের ধুবড়ি, শিলঘাট ও পান্ডু জলপথে ১০টি জাহাজ চলাচল

করছে। এই জলপথটির প্রধান সমস্যা হচ্ছে গভীর (প্রাফট) কম। যে কারণে, বড় আকারের

জাহাজ চলাচল করতে পারছে না। খনন কাজ চলছে। কমপক্ষে ৮ থেকে ১০ ফিট গভীর হলে

এপথে হাজার টনের জাহাজ অনাযাসে চলাচল সম্ভব। নিখিল ভদ্র বলেন, দু’দেশের জলপথের

পাশাপাশি রেলপথ, সড়ক পথেও পণ্য পরিবাহিত হচ্ছে। আগামীতে এই ব্যস্থতা আরও বাড়বে।

কারণ বাংলাদেশ ভারতের মধ্যে যে সম্ভবনা রয়েছে তা কাজে লাগাতে আমাদের কাজ করে

যেতে হবে। রাহা কাজী বলেন, দুদেশের সম্পর্ক খুবই গভীরে। একে আকড়ে ধওে আমরা এগিযে

যেতে চাই। আমরা চাই দু’দেশের এই উদ্যোগ আরও গতিশীল হবে।

দুই দেশের প্রধানমন্ত্রীর উদ্যোগে এটা করা সফল হয়েছে

ড. অধ্যাপক হাবিৱুর রহমান বলেন, বাংলাদেশ ভারত সম্পর্ক অনন্য উচ্চতায। এটি সম্ভব

হয়েছেয উভয় দেশের প্রধানমন্ত্রীর হাত ধরে। আগামী এসম্পর্ক আরও গতিশীল করতে

আমাদেও ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ কওে যেতে হবে। যে যে সমস্যা দেখা দেবে তা সহনশীলতার মধ্যে

সমাদান করতে হবে। বাংলাদেশ একটি উদীযমান অর্থনীতির দেশ। এই গতি ধরে রাখতে

আমাদেও কাজ কওকে যেতে হবে। আমাদেও মনে রাখতে হবে, সুসম্পর্ক মানুষের কল্যাণ

সাধনের অন্যতম পথ। ড. শফিক মীর বলেন, দুদেশের পর্যটন বহু ক্ষেত্র রয়েছে। যা

আমাদের অংকারের বিষয। এগুলো আমাদের কাজে লাগাতে হবে। পর্যটন দু’দেশের

সেতুবন্ধনে বিশাল ভূমিকা রাখতে পারে। ইতিহাস ঐতিহ্যকে সঙ্গে নিযে আমাদেও এগিযে যেতে

হবে। সভাপতির বক্তব্যে ড. হাবিৱুর রহমান বলেন, বাংলাদেশ“ভারতের সম্পর্ক এক অনন্য

উচ্চতায। আর তা সম্ভব হযেে, বাংলাদেশের শেখ হাসিনার হাত ধরে। আগামীতে নৌপথ ও

পর্যটন সহ সকল ক্ষেত্রে দুদেশের সম্পর্ক আর সম্প্রসারিত হবে। আগামী বছর ২৬ মার্চ

বাংলাদেশ জমকালো অনুষ্ঠানের মধ্য দিযে স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী পালন করবে। এছাড়া

আসছে ১৬ ডিসেম্বর বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর

মধ্যে ভার্চূ্য়াল বৈঠকের কথা রয়েছে।

Please Share This Post in Your Social Media

More News Of This Category

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

ব্রেকিং নিউজ
Bengali English Hindi